NAVIGATION MENU

সীমান্তবর্তী নদীতে দুই দেশের সমান অধিকার থাকবে: প্রধানমন্ত্রী


বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী নদীতে দুই দেশের সমান অধিকার থাকবে। ফেনী নদী থেকে ভারতকে ‘অত্যন্ত নগণ্য’ পরিমাণ পানি দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘ফেনী নদীর উৎপত্তিস্থল খাগড়াছড়ি। এটা খাগড়াছড়ি থেকে মাটিরাঙ্গা হয়ে ভারতের সীমান্তবর্তী নদী। ওখানকার ৪০ কিলোমিটার বাংলাদেশের অংশে, একটি অংশ সোনাগাজী হয়ে সাগরে চলে গেছে।

তিনি আরো বলেন, ‘ভারতের রামগড়ের সাবরম এলাকায় খাবার পানির খুব অভাব। তারা আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে পানি তোলে। ভারতের সঙ্গে খাবার পানির চুক্তি হয়েছে।

এছাড়া বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে পদ্মা, মাতামুহুরীসহ এমন সাতটি সীমান্তবর্তী নদী আছে। আমরা আলোচনা করেছি, যৌথভাবে এসব নদী ড্রেজিং করব। আমরা এই নদী নিয়ে কাজ করছি।’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বিএনপি নেতাদের কাছে প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘খালেদা জিয়া যখন ভারত গিয়েছিলেন, তখন কি তারা গঙ্গা চুক্তি করতে পেরেছিলেন?

ফিরে আসার পরে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করল, খালেদা জিয়া বলেছিলেন— পানির প্রসঙ্গ ‍ভুলেই গিয়েছিলাম। যে দল দেশের স্বার্থের কথা ভুলে যায়, তারা এত বড় কথা বলে কীভাবে?’

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন স্থলসীমান্ত চুক্তি করলেন, তখন পত্রিকা পড়লে দেখবেন— অনেকে বলেছে, দেশ বেঁচে দিলো।

শেখ হাসিনা বলেন, দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার পর আমরা সীমানা নির্দিষ্ট করলাম। আমার প্রশ্ন— তারা (বিএনপি) কেন সীমানা নির্দিষ্ট করেনি? আমরা স্বাধীন দেশ, আমার সীমানা নির্দিষ্ট থাকবে। ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে আমার প্রক্রিয়া শুরু করি।’

আপডেট নিউজ পেতে ভিজিট করুন - আজকের বাংলাদেশ পোস্ট

এমআইআর / এস এস