ন্যাভিগেশন মেনু

মুজিববর্ষে শেখ হাসিনার উপহার পেলো ৭০ হাজার গৃহহীন


মুজিববর্ষ  উপলক্ষে দেশের ৪৯২টি উপজেলার ৬৯ হাজার ৯০৪ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পাকা ঘরসহ বাড়ি উপহার দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শনিবার (২৩ জানুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভূমিহীন ও গৃহহীন এই পরিবারগুলোকে জমি ও ঘর প্রদান করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রথম ধাপে ভূমিহীন-গৃহহীনদের একটি সুন্দর ঘরের স্বপ্ন পূরণে দুই শতক জমিসহ একটি আধাপাকা বাড়ি দেওয়া হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘর হস্তান্তরের সময় বলেছেন, সবাই ঘর পাবেন এটাই বড় উৎসব। আজকে আমার অত্যন্ত আনন্দের দিন, ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও ঘর প্রদান করতে পারা বড় আনন্দের বিষয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দেশের একটি মানুষও গৃহহীন থাকবে না। পৃথিবীতে কোনো দেশের সরকার এতো অল্প সময়ে বিপুল সংখ্যক মানুষকে বসবাসের জন্য ঘর দিতে পারেনি। যা আওয়ামী লীগ সরকার পেরেছে।

এ সময় সারাদেশে যারা ঘর পেয়েছেন, তাদের ঘরের সামনে একটি করে গাছ, বিশেষ করে ফলজ গাছ লাগানোর আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় লাইভে যুক্ত ছিলেন, খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর, নীলফামারীর সৈয়দপুর ও হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলা। এছাড়াও দেশের সব উপজেলা অনলাইনে যুক্ত হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের কথাই ভাবতেন। আমাদের পরিবারের লোকদের চেয়ে তিনি গরীব অসহায় মানুষদের নিয়ে বেশি ভাবতেন এবং কাজ করেছেন। এ গৃহ প্রদান কার্যক্রম তারই শুরু করা।

মুজিববর্ষ উপলক্ষে আশ্রয়ণ প্রকল্প-২ এর আওতায় প্রায় নয় লাখ মানুষকে পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পাকাঘর উপহার দেওয়া হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ঘর পেল প্রায় ৭০ হাজার পরিবার। আগামী মাসে আরও একলাখ পরিবার বাড়ি পাবে। অনুষ্ঠানে আশ্রয়ণ প্রকল্পের তৈরি ডকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

উপকারভোগীদের দুই কক্ষবিশিষ্ট প্রতিটি ঘর তৈরিতে খরচ হচ্ছে এক লাখ ৭১ হাজার টাকা। সরকারের নির্ধারিত একই নকশায় হচ্ছে এসব ঘর। দুই কক্ষবিশিষ্ট এই ঘরে থাকছে বারান্দা, রান্নাঘর, সংযুক্ত টয়লেট। টিউবওয়েল ও বিদ্যুৎসংযোগও দেওয়া হচ্ছে।


এডিবি/