ন্যাভিগেশন মেনু

দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে ঈদ উপহার বিতরণ


বৈশ্বিক করোনার কারণে দীর্ঘদিন ধরে চলা লকডাউনে অসহায় হয়ে পড়েছেন রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলায় অবস্থিত দেশের সর্ববৃহৎ দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর বাসিন্দারা।

তাঁদের অসহায়তা ঘোচাতে এগিয়ে গেলেন পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি হাবিবুর রহমান। এজন্য আসন্ন ঈদুল ফিতরের উপহার হিসেবে এসব অসহায় নারীদের মুখে হাসি ফোটাতে সোমবার ১৪০০ শাড়ি ও পল্লী সংলগ্ন এলাকার ২০০ দরিদ্র পুরুষের মাঝে লুঙ্গি বিতরণের ব্যবস্থা করেন তিনি।

এর আগে গত ২২ এপ্রিল পল্লীর ১৩ শ নারীকে খাদ্য -সামগ্রী দেয়া হয় ডিআইজি হাবিবুর রহমানের পক্ষ হতে। 

ডিআইজির নিজস্ব সংগঠন উত্তরণ ফাউন্ডেশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় এ শাড়ি-লুঙ্গিগুলো বিতরন করা হয়। রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান উপস্থিত থেকে ডিআইজি হাবিবের পক্ষে এ উপহার বিতরন করেন। 

এ সময় গোয়ালন্দ ঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর,উত্তরণ ফাউন্ডেশনের পরিচালক লুলু আর মারজান যৌনজীবীদের সংগঠন অসহায় নারী ঐক্য সংগঠন এর সভানেত্রী ঝুমুর বেগম, উত্তরণ ফাউন্ডেশনের স্থানীয় প্রতিনিধি মাহিয়া মাহি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যৌনপল্লীর পার্শ্ববর্তী  উত্তর দৌলতদিয়া সোহরাপ মণ্ডল পাড়ায় ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল ফকিরের বাড়ির আঙ্গিনা হতে এগুলো বিতরণ করা হয়।

অসহায় নারী ঐক্য সংগঠনের সভানেত্রী ঝুমুর বেগম বলেন, কয়েকদিন আগে ডিআইজি হাবিবুর রহমান এ পল্লীর ১৩০০ নারীর মাঝে খাদ্য সামগ্রী দিয়েছেন। আজকে ঈদ উপলক্ষে শাড়ি -লুঙ্গি দিলেন। 

করোনার কারণে গত একটি বছর ধরে এ পল্লীর বাসিন্দারা অসহায় জীবনযাপন করছেন। দুঃসময়ে বারবার পল্লীর এ অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় আমরা স্যারের প্রতি গভীরভাবে কৃতজ্ঞ।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার এমএম শাকিলুজ্জামান  বলেন, ডিআইজি হাবিবুর রহমান তার উত্তরণ ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে সমাজের বিভিন্ন অসহায় মানুষের জন্য কাজ করে আসছেন। যৌনকর্মীরা তাদের অন্যতম। 

গত বছরের মতো এ বছরও  চলমান লকডাউনে দেশের সর্ববৃহৎ এ যৌনপল্লীতে ফাউন্ডেশনের পক্ষ হতে খাদ্য ইতিমধ্যে সামগ্রী বিতরন করা হয়। ঈদ উপলক্ষে এবার শাড়ি -লুঙ্গি বিতরন করা হলো।এ ধরনের কার্যক্রম আগামীতেও চলমান থাকবে।

এস এস