NAVIGATION MENU

টিকটক বন্ধ হওয়ায় ক্ষুব্ধ মিমি ও নুসরাত!


প্রতিদিনই বাড়ছে  ভারত-চিন উত্তেজনা। এমন অবস্থায় চিনা পণ্যসহ দেশটির ৫৯টি তৈরি অ্যাপ নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। এর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় অ্যাপটি হচ্ছে টিকটক।

টিকটক বন্ধ করায় বেজায় চটেছেন কলকাতার জনপ্রিয় নায়িকা ও সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ও নুসরাত জাহান। খবর জি২৪ ঘণ্টা’র।

অভিনেত্রী নুসরত জাহান এ বিষয়ে টুইটারে লিখেছেন, ‘অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ার মতোই টিকটক আমার কাছে একটি প্লার্টফর্ম ছিল। যাঁর মাধ্যমে ভক্তদের সঙ্গে আমি সংযোগ রাখতাম। যদি দেশের স্বার্থে এই অ্যাপ বন্ধ করা হয়, তাহলে আমি তাতে সমর্থন করছি।

তবে জাতীয় স্বার্থে টিকটক নিষিদ্ধ করা নিয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে সমর্থন জানালেও ভিন্ন প্রশ্ন তুলেছেন এই সাংসদ ও অভিনেত্রী।

তাঁর প্রশ্ন, এটা কি কোনও কৌশলগত সিদ্ধান্ত? চিনা অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার কারণে যাঁরা কাজ হারালেন তাঁদের এখন কী হবে? তাঁদের নিয়ে সরকার কী ভাবছে? ভারতে যে চিনা সংস্থাগুলি ইতিমধ্যেই বিনিয়োগ করেছে সেগুলির কী হবে? প্রধানমন্ত্রীর চিন সফর থেকে কী পেয়েছি আমরা? এটা একেবারে হঠকারী সিদ্ধান্ত। যে সমস্ত মানুষের রুজিরুটি চিনা দ্রব্য আমদানি-রফতানির সঙ্গে জড়িত তাঁরাই বা কী করবেন?

অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী যদিও টিকটকের থেকে তাঁর নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বেশি সক্রিয়। টিকটক বন্ধ হওয়ার জন্য মিমি এক সংবাদমাধ্যমের কাছে বলছেন, তিনি একজন পারফর্মার। তাঁর নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে। তাই প্রত্যেকটি প্লাটফর্মে তাঁর কাছে সমান। আগামীতে আরো কিছু অ্যাপ যদি বন্ধ হয়ে যায় তাতেও তাঁর কোন অসুবিধা হবে না বলেই জানিয়েছেন মিমি চক্রবর্তী।

ওআ/