ন্যাভিগেশন মেনু

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কবরী


রাজধানীর বনানী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন কিংবদন্তী অভিনেত্রী, চলচ্চিত্র নির্মাতা, সাবেক সাংসদ সারাহ বেগম কবরী।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) বাদ জোহর করোনার স্বাস্থ্যবিধি মেনেই এই কিংবদন্তির দাফনকাজ সম্পন্ন হয়েছে। 

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে বাসায় নেওয়া হয় সারাহ বেগম কবরীকে। সেখানে কিছুক্ষণ রাখা হয় তাকে। পরে বাদ জোহর তার মরদেহ নেওয়া হয় বনানী কবরস্থানে। সেখানে গার্ড অব অনার প্রদানের পর তার নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন কবরীর পুত্র শাকের চিশতীসহ তার পরিবারের অনেক সদস্য, দীর্ঘদিনের সহকর্মী, আত্মীয়-স্বজন ও শুভানুধ্যায়ীরা। এরপর সমাহিত করা হয় দেশের চলচ্চিত্রের এই উজ্জ্বল নক্ষত্রকে।

গত ৫ এপ্রিল কবরীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ এলে তাকে কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ৮ এপ্রিল দুপুর ২টা ১৫ মিনিটে তাকে মহাখালীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়।

আইসিইউতে প্রায় এক সপ্তাহ চিকিৎসাধীন থাকার পর বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়। নেওয়া হয় লাইফ সাপোর্টে। শুক্রবার রাত ১২টা ২০ মিনিটে সেখানেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ দেশের জনপ্রিয় এ অভিনেত্রী।

১৯৬৪ সালে ‘সুতরাং’ দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় এ অভিনেত্রীর। অভিনয়ের পাশাপাশি কয়েকটি ছবির প্রযোজনা ও পরিচালনাও করেন তিনি। সর্বশেষ সরকারি অনুদানে নির্মিত ‘এই তুমি সেই তুমি’ নামে একটি ছবি পরিচালনা করেছেন। অভিনয় ও নির্মাণের পাশাপাশি লেখালেখিও করেন কবরী। ২০১৭ সালে প্রকাশিত হয়েছে তার লেখা আত্মজীবনী ‘স্মৃতিটুকু থাক’।

ওআ/