NAVIGATION MENU

কুয়েত-মৈত্রী হাসপাতালের ৪ চিকিৎসককে বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার ২ জনের বহাল


রাজধানীর কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালের চার চিকিৎসককে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে।  তবে একই দিনে কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দিতে অনিচ্ছা জানিয়ে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় বরখাস্তকৃত ২ চিকিৎসকের আদেশ এখনো বহাল রয়েছে।

আদেশ প্রত্যাহার করা চার চিকিৎসক যে কয়েকদিন সাময়িক বরখাস্ত ছিলেন, ওই কয়েকদিন কর্মকাল হিসেবে বিবেচিত হবে।

বুধবার (১ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক আদেশে এই চার চিকিৎসককে পুনর্বহাল করা হলেও বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) আদেশের বিষয়টি জানা যায়।

চার চিকিৎসক হলেন - ওই হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট (অ্যানেস্থেশিয়া) ডা. হিরম্ব চন্দ্র রায় এবং মেডিকেল অফিসার ডা. ফারহানা হাসানাত, ডা. উর্মি পারভিন ও ডা. কাওসার উল্লাহ।

অধিদপ্তরের পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. বেলাল হোসেনের সই করা আদেশে বলা হয়েছে, গত ১১ এপ্রিল এই চার চিকিৎসককে সাময়িক বরখাস্ত করেছিল স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। পরে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের গত ৭ জুন তারিখের চিঠির আলোকে তাদের সাময়িক বরখাস্তের সেই আদেশ প্রত্যাহার করা হলো।

এর আগে, গত ১১ এপ্রিল ডা. বেলাল হোসেনেরই সই করা স্বাস্থ্য অধিদফতরের আদেশে বলা হয়েছিল, কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিবের টেলিফোনিক নির্দেশে সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা-২০১৮-এর ধারা ১২ অনুযায়ী চার চিকিৎসককে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো।

একই দিন আরেক চিঠিতে একই হাসপাতালের জুনিয়র কনসালট্যান্ট ডা. শারমিন হোসেন ও আবাসিক চিকিৎসক ডা. মুহাম্মদ ফজলুল হককে কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দিতে অনিচ্ছা জানিয়ে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকায় সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। তাদের সেই আদেশ এখনো বহাল রয়েছে।

এডিবি/